Skip to content

Category: Editorial

নারীরূপেণ সংস্থিতা – সম্পাদকীয় | শারদীয়া সংখ্যা

পুজোর আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। ফাইলটা বন্ধ করে একগ্লাস জল খেতে খেতে অপর্ণা ভাবে। পুলিশের চাকরিতে ঢোকার পর থেকে পুজো মানে তার কাছে শুধুই ডিউটি,…

কথাবৃক্ষ শারদীয়া সংখ্যা – সম্পাদকীয়

কথাবৃক্ষ শারদীয়া সংখ্যা – আচ্ছা, এই তিন শব্দ আমাদের মনে ঠিক কোন ছবিটা তৈরি করছে? এই বছরে অতিমারীর আতঙ্কে গুমরে ভয় পেয়ে থাকার বা জীবনবিমুখ…

মহাত্মা – সম্পাদকীয়

“প্রিয় বন্ধু, যদিও আপনার সাথে আমার সাক্ষাতের সুযোগ হয়নি, তাও আমি আপনাকে বন্ধু বলেই সম্বোধন করলাম। আমি জানি, ব্রিটিশ সরকারের কাছে আমি সবচেয়ে বড় শত্রু…

কলমঞ্জিররঞ্জিনী – সম্পাদকীয়

যাও যাও গিরি আনিতে গৌরী, ঊমা বড় দুখে রয়েছেদেখেছি স্বপন নারদ বচন, ঊমা মা মা বলে কেঁদেছে.. সবাইকে বা সবকিছুকে নিজের মনের মত করে সাজিয়ে…

ভোকাট্টা – সম্পাদকীয়

“পেটকাটি চাঁদিয়াল মোমবাতি বগ্গা “…গানটা তো আমাদের সকলেরই খুব প্রিয় তবে এই শব্দগুলোর সাথে কি আমাদের সবার পরিচয় আছে ? নাম কি শুধু মানুষ গাছ…

রাজধর্ম – সম্পাদকীয়

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি শ্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় গত ৩১ আগস্ট গত হওয়ার পর, সমস্ত সংবাদমাধ্যম এবং সমস্ত সংবাদপত্রিকা-ই শ্রী মুখোপাধ্যায় সম্পর্কে নানা কথা বলে এসেছেন। তাঁর রাজনৈতিক…

ধরা যাক আজ রোববার – সম্পাদকীয়

রবিবার .. সানডে … সপ্তাহের এই একটা দিনের জন্য সমস্ত মানুষের কত অপেক্ষা, কত জল্পনা, কল্পনা। সারা সপ্তাহের কর্মক্লান্ত দিনগুলি পার করা যেন এই একটা…

‘ওরা কেমন আছে?’ – সম্পাদকীয়

বিভিন্ন সুস্বাদু রান্না নিয়ে বিভিন্ন হেঁশেলের কথা তো আমরা জানি। আমাদের শহরেই রয়েছে বিভিন্ন নামিদামি রেস্তোরাঁ, যেখানে পেট ভরে বাঙালির ভুরিভোজের সুযোগ রয়েছে। কিন্তু অন্যান্য…

জনগণপথপরিচায়ক জয় হে – সম্পাদকীয়

জনগণ পথপরিচায়ক জয় হে  আমাদের জাতীয় সংগীত, আমাদের এক অমূল্য সম্পদ। এই কারণে নয়, যে কোনো এক Whatsapp Forward এ বলা হয়েছে যে আমাদের জাতীয়…

অন্তরে ভুল ভাঙবে কি…?! – সম্পাদকীয়

‘অবান্তর’ পত্রিকার কর্ণধার চিরকুমার রে।না না উনি মোটেই চির কুমার নন ।আসলে হয়েছে কি, তাঁর বাবা ছিলেন রবীন্দ্র ভক্ত  মানুষ চিরকুমার সভা নাটকটি তিনি পড়ার পরই ছেলের জন্ম হওয়ায় তার নামকরন করেন  চিরকুমার।তবে নাটকে অতজন পুরুষ চরিত্রকে ছেড়ে দিয়ে  ছেলের এই নামটিই কেন রাখলেন তা বলতে পারব না।তাই এক জাঁদরেল গিন্নি ও ৩ ছেলেমেয়েকে নিয়ে ঘোরতর সংসারী মানুষটি আজও নামে চিরকুমারই রয়ে গেছেন।এমনকি, সেই নাটকের মতো হুইস্কি,সোডা,মুরগি বা মটনের প্রতিও তাঁর একেবারে লোভ নেই।সে ওই যা একটু আছে তা হলো তাঁর তেলেভাজ প্রতি দুর্বলতা। এতেও হয়েছে চিত্তির।নামের আদ্যক্ষরের সাথে এই শখ মিলিয়ে তাঁর  অধস্তন কর্মচারীরা তাকে চিড়েভাজা বলে থাকেন।তা আজ তাঁর মেজাজটি বেজায় তিরিক্ষি হয়ে  রয়েছে।এই সপ্তাহের শেষে ‘সপ্তাহের হাবিজাবি’ ক্রোড়পত্রেছাপানোর মতো কোনো লেখা জোগাড় হয়নি।তারওপর তার আপিসের নতুন দুটি ফচকে ছোড়া  জুটেছে কোনও কাজই হয় না যাদের দিয়ে।সাত পাঁচ ভেবে ওই দুজনকেই তলব করলেন চিড়ে…থুড়ি চিরকুমার বাবু। প্রশ্ন পুরকায়স্থ আর সন্দেহ সরখেল। ‘অবান্তর’ পত্রিকার দুই তরুণ সাংবাদিক চিরকুমার বাবুর গালি খেয়ে বেরিয়েছে খবর সংগ্রহে।বাইশে শ্রাবনের বিশেষ সংখ্যা তাই একেবারে খোদ বিশ্বকবির বিশ্বভারতীতে হাজির।ভালো খবর না হলে চাকরি নট হওয়ার হুমকি  কপালে ঝুলছে যে।এধার ওধার ঘুরে,উদয়ন ছাড়িয়ে যেই শ্যামলীর  সামনে এসেছে দুজনে,তাদের শ্বাস বন্ধ হওয়ার  জোগাড়।একি! বাড়ির দাওয়ায় বেতের মোড়ার ওপর এ যে  স্বয়ং বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বসে!স্থান কাল সত্যি মিথ্যে ভুলে প্রশ্ন আর সন্দেহ সোজা ডাইভ মারে কবির পায়ে।  ‘স্যার স্যার… গুরুদেব…. একটা ইন্টারভিউ দিতেই  হবে বস্ … নইলে দুজনের চাকরি নিয়ে টানাটানি  পরে যাবে বেঘোরে …’ কোনও সাড়া না পেয়ে দুজন মুখ তুলে দেখে, দাঁড়ির ফাঁক দিয়ে মুচকি মুচকি হাসছেন তিনি।চোখ পড়তেই বললেন, ‘আরে ওঠ,ওঠ … আমি তো এখন তোদের নশ্বর …

%d bloggers like this: