Skip to content

অনেক অতিমারী ভাইরাস সমাজ ব্যবহারে অহরহ ঘুরে বেড়ায় যা মাস্ক-ডিসটেন্স বজায় রেখেও অনতিক্রম্য – মানবী বন্দোপাধ্যায়

Last updated on June 30, 2021

ভারতের প্রথম Trans-woman অধ্যাপক যিনি প্রায় এক যুগের লড়াইয়ের পর ২০১৫ সালে Krishnanagar Women’s College এর Principal হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করে এক ইতিহাস রচনা করেন, আমাদের সবার অত্যন্ত শ্রদ্ধার মানুষ , খুব পরিচিত মুখ, ডঃ মানবী বন্দোপাধ্যায় ।
শত ব্যস্ততার মধ্যেও কথাবৃক্ষের প্রশ্নের উত্তর লিখে পাঠিয়ে দিয়েছেন। সেই কথোপকথন আজ আপনাদের সাথে ভাগ করে নিতে পেরে আমরা খুব ই আনন্দিত।

১. ঠিক কোন বয়সে উপলব্ধি করলেন যে ভিতর আর বাহিরের ছন্দ টা ঠিক মিলছেনা ? ওই উপলব্ধি টা কি শুধুই বেদনার ছিল ?

উপলব্ধি আমি করিনি ! আমার আশপাশ করিয়েছে ! বেদনার তো বটেই “ওকে ছুঁয়ো না ছুঁয়ো না ছিঃ / ও যে চণ্ডালিনীর ঝি ” প্রচলিত পৃথিবী থেকে একা করে দিলে উদ্বায়ী বাষ্পর মতো যে ঊর্ধগমন হয় সেটা যে জীবনের পরম গন্তব্য এই বোধটা হওয়ার পর বোঝা যায় বেদনা রাগ সঙ্গীতের মতো সুদূর ইতিবাচক এক আশীর্বাদী ফলপ্রসূ ।

২. হাজার হাজার সোমনাথ, মানবী হওয়ার স্বপ্ন দেখে রোজ..এই সব স্বপ্ন গুলো সত্যি করতে গেলে ছাড়া আর কি কি প্রয়োজন ?

হতে চাওয়া মানবীকে বুঝে নিতে হবে এ সমাজ বড় নিষ্ঠুর ! এই যেমন প্রশ্ন করার অবচেতনায় আমার আইডেনটিটি ক্রাইসিস বাড়াতে আমার পরিত্যক্ত জীবনের নামটি বার বার তুলে আনা হবে , সেই অবচেতন আয়াসের অন্যের পরিতৃপ্তি মানবীকে আঘাত দিয়ে, সেটা তুচ্ছ করতে হবে মানবীকে। এরকম অনেক ছোটো ছোটো অতিমারী ভাইরাস সমাজ ব্যবহারে অহরহ ঘুরে বেড়ায় যা এড়িয়ে মাস্ক ডিসটেন্স বজায় রেখেও অনতিক্রম্য সেটা একজন হতে চাওয়া মানবীই জানবেন ! যাক আপনাদের প্রশ্নে একটা ইতিবাচক সূত্র পাওয়া গেল হাজার হাজার মানবী হতে চাওয়ার তথ্য । আমাকে প্রাণিত করল ।

৩. সমাজ কি শুধু পরিবর্তনের বা রূপান্তরনের উপর ফোকাস করে থাকে নাকি রূপান্তরিত সত্ত্বা টা’র কথা ও ভাবে ?

সমাজ শব্দটি অর্থের তাৎপর্যে বহুধা বিস্তৃত । সমাজের অনেক খোপ অনেক বিভাজন । আমার আত্মা শুধু সমাজের ইতিবাচক দিকটিই চয়ন করবে যেখানে সে কমফোর্ট জোন মনে করবে । মানুষই সমাজ গড়ে সমাজ মানুষ গড়তে পারে পরোক্ষে প্রত্যক্ষে নয় । তাই সমাজ কিভাবে দেখছে এটা বড় কথা নয় আমি সমাজকে কিভাবে দেখছি সমাজকে শেখাতে পারছি সে দায়িত্ব ব্যক্তি আমির থেকে যায় ! অ্যারিস্টটল বিশ্বাস করতেন ঘোড়ারা যদি লিখতে পারত তাহলে ঘোড়াদের দেবতা দেখতে হত ঘোড়াদের মতো ।

৪. রূপান্তরিত হওয়ার আগের এবং পরের জীবন এর প্রতিকূলতার মধ্যে পার্থক্য গুলো কেমন?

প্রতিকূলতা একটি নৈসর্গিক ব্যায়াম । যা মনের শরীরের ইমিউনিটি পাওয়ার বাড়ায় । অনুকূলতা পরিশ্রমবিমুখ বলে নেতিবাচক ।

৫. রূপান্তরকামীদের সামগ্রিক বিকাশ ও উন্নতিতে সরকার কতখানি উদ্যোগ নিয়েছে? এ বিষয়ে আর কি কি করা প্রয়োজন?

এটির জন্য সরকারি নথি দেখতে অনুরোধ করি ! আপনি আপনার করা দ্বিতীয় প্রশ্নটিতে যে মানবীর কথা বলেছেন সেই মানবী অজস্র লিখে যাচ্ছেন তার ব্যক্তিক অনুভূতি ! শুধু সরকারের দিকে দায়িত্ব ঠেলে দিলে চলবে না আমাদের রাষ্ট্রীয় কাঠামোয় পরিবার এবং ব্যক্তিরও স্বতন্ত্র দায় দায়িত্ব থাকে ! নিজের দুটি চরণ ঢাকো তবে / ধরণী আর ঢাকিতে নাহি হবে !

৬. আগের তুলনায় মানুষ কতটা gender sensitive হতে পেরেছে বলে মনে হয় ?

সেটা আপনারা আরো ভালো বলতে পারবেন । বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে মানবী বিদ্যা চর্চা বা ওম্যানস স্টাডিজ বিভাগ খুলে গেছে বিগত কয়েক বছরে সেটা কি লিঙ্গ সচেতনতার নিরিখ নয় ?

৭. কলেজ এর প্রিন্সিপাল , নিজে একটি পত্রিকা ও চালান আর কি কি কাজের মধ্যে সময় কাটে আপনার ?

কাজ গুলোকে আইডেনটিফাই করলে ওগুলো কর্তব্য হয়ে যায় ! তাই বিশ্বচরাচর প্রতিনিয়ত ফুল ফোটাচ্ছেন ফল জোগাচ্ছেধ খাদ্য বস্ত্র নিয়ন্তা সেই পরম ব্রহ্ম তাঁর সূত্রে সূত্র মেলালে আমাদের দৈনন্দিন জীবিত থাকার বৈশিষ্ট্যগুলি আপন বিকাশে মুকুলিত সেগুলিকে আপন কর্ম হিসাবে গণিত করে অহং বৃদ্ধি প্রহসনের নামান্তর !

৮.এই Pandemic কতটা প্রভাব ফেলেছে আপনার জীবনে ?

প্রকৃতির পরাকাষ্ঠা বিজ্ঞানের অভিশাপ দিয়ে ঢেকে দিতে গিয়ে মানুষের অহং মানুষকে কিভাবে বিনষ্ট করে তা দেখে আমি অত্যন্ত শঙ্কিত আতঙ্কিত !

৯. আপনার কাছে Pride Month এর গুরুত্ব ঠিক কি ?

Pandemic and Pride দুই পি তে আমার পৃষ্ঠব্রণ! আমি যে অন্ধকারে ভগবান বাবা মা র সাহায্য ভালোবাসা এবং সম্পূর্ণ একার যুদ্ধে বড় হয়েছি সে যুদ্ধকালীন সমাজ সময়ে এই দুই ,” P ” এর কোনোটিই ছিল না ।

১০.কথাবৃক্ষের পাঠক দের উদ্যেশ্যে কিছু যদি বলেন..

কথাবৃক্ষ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ একটি নাম ! বুদ্ধ থেকে পরমহংস যে বোধিবৃক্ষের তলে বসে অষ্টাঙ্গ মার্গের কথামৃত পেয়েছেন তা একমাত্র দিতে পেরেছে মূক অথচ বাঙ্ময় বৃক্ষ ! কথাবৃক্ষ কথা সাহিত্যের সেই আঙ্গিকটি ধরুক জীবন স্মৃতিতে বালক রবীন্দ্রনাথ যেটি ধরেছেন ” নিশিদিশি দাঁড়িয়ে আছ মাথায় লয়ে জট / ছোটো ছেলেটি মনে কি পড়ে ওগো প্রাচীন বট । “

অনুলিখন ও সম্পাদনা: শ্রীতমা বসু, কথাবৃক্ষ।

চিত্রঋণ : Indian Express, PTI

Copyright © Kothabriksha 2021, All Rights Reserved

সুরকাহনের সুরে মুক্তির গান

অস্তরাগের রেশ – রত্না রায়

ইতি, নীলু – স্বস্তিক মজুমদার

ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মেডিক্যাল ক্যাম্প সংক্রান্ত রিপোর্ট – পর্ব ২

অনেক অতিমারী ভাইরাস সমাজ ব্যবহারে অহরহ ঘুরে বেড়ায় যা মাস্ক-ডিসটেন্স বজায় রেখেও অনতিক্রম্য – মানবী বন্দোপাধ্যায়

সুরকাহনের সুরে মুক্তির গান

অস্তরাগের রেশ – রত্না রায়

ইতি, নীলু – স্বস্তিক মজুমদার

ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মেডিক্যাল ক্যাম্প সংক্রান্ত রিপোর্ট – পর্ব ২

অনেক অতিমারী ভাইরাস সমাজ ব্যবহারে অহরহ ঘুরে বেড়ায় যা মাস্ক-ডিসটেন্স বজায় রেখেও অনতিক্রম্য – মানবী বন্দোপাধ্যায়

Adhunik Bangla Gan Ambika Ghosh benaras Bengal Bengali Literature Bengali Poetry bengali short story coronavirus Dakshinee dreams Durga Puja Editorial Emotions folk culture indian politics Kashmir Kobita kolkata kothabriksha lockdown Music Nature nilimesh ray poem Poetry Pratyay Pratyay Raha pritam chowdhury Rabindranath Rabindranath Tagore Rabindrasangeet Religion Sayandeep Paul sharodiya shonkhya shortstory society Srabanti Sen Stories Story Sustainable Travel Suvo Guha Thakurta Theatre travel Travelogue World Environment Day

Published inInterview

Be First to Comment

Leave a Reply

%d bloggers like this: