‘I stare at the stars to get engrossed in its mysteries’ – Snehajit Roy

Kothabriksha had conducted an interview with Photographer Snehajit Roy on his experiences of shooting the Milky Way galaxy. We are thankful to Snehajit Roy for taking out time to speak to us on this very interesting subject. Kothabriksha: Today’s discussion is a bit specific, we know you have been a professional photographer for a long…

প্রসঙ্গে মৌমাছি ও মধু – পর্ব ২ – সুকন্যা দত্ত

আজ প্রাচীন মিশরে মধু ও মৌমাছির গুরুত্ব নিয়ে কিছু তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করছি। প্রাচীন মিশরে সমাজের উচ্চ-নিম্ন সকল শ্রেণীর মানুষ মধু পান করতো, যার থেকে ধারণা করা হয় হয়তো সেই সময় পর্যাপ্ত পরিমাণে মধুর চাষ হতো।হায়ারোগ্লিফিক্সে মধু এবং মৌমাছি সংগ্রাহকের বহু ছবির উদাহরণ পাওয়া যায়। প্রায় চার থেকে সাড়ে চার হাজার বছর ধরে মিশরীয়দের মধ্যে একই পদ্ধতিতে মৌমাছি সংরক্ষনের প্রথা…

বাংলার নদী-মাঠ-ভাঁটফুলের গল্প – সম্পাদকীয়

এই না শ্রাবণ মাসে ওইনা বিষ্টি আসে – কেমন করে থাকবো বলো আঁধার ঘেরা ঘরে, ভেসে গেল বেহুলা লখাই কালনাগিনীর তরে৷  বিষহরী মা মনসা ডাকি করজোড়ে। শ্রাবণ মাস, বাংলার ঝড়জলের মাস। এই শ্রাবণ-ভাদ্রেই বাংলার একেবারে নিজের লোকগাঁথা মনসামঙ্গলেরও মাস। সেই লোকগাথায় মিশে আছে এই বাংলা দেশের চিরকালীন সুখদুঃখের কাহিনী। আছে, স্বামীহারা এক স্ত্রীর বিচার পাওয়ার…

“When music is the soul, rhythm is the heartbeat…” – In conversation with Ustad Sabir Khan

Ustad Sabir Khan, one of the finest exponents of Tabla and the present Khalifa of the legendary Farukkabad Gharana is the 33rd descendant of an unbroken lineage. Ustadji received his initial training in Tabla from his grandfather Ustad Masit Khan and was later groomed by his father Ustad Keramatullah Khan. An explicit Ghazal singer and…

প্রসঙ্গে মৌমাছি ও মধু – পর্ব ১ – সুকন্যা দত্ত

মৌমাছি ও মধু শব্দদুটি একে অপরের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। মৌমাছি ও মধুর কথা নানানভাবে বারবার উঠে এসেছে পুরাণে, ধর্মীয় পুস্তকে, রূপকথায়, লোককথায়, বিজ্ঞানে ও চিকিৎসা শাস্ত্রে। প্রত্নতত্ত্ববিদরা প্রায় ৯০০০ বছর আগে মৃৎ শিল্পে যে সকল পাত্রের সন্ধান পান, তার থেকে অনুমিত হয়, সে সময় মৌমাছি প্রতিপালন, মৌচাকের অস্তিত্ব ছিলো। ১৯১৯ সালে স্পেনের ভেলেনিকার কাছে বাইকর্পে আরানা গুহার গায়ে একটি গুহাচিত্র…

মাগো, আমি ইশকুল যাব কবে ? – সম্পাদকীয়

কাঁধে স্কুলব্যাগ ঝুলিয়ে, গলায় জলের বোতল ঝুলিয়ে কাঁদতে কাঁদতে প্রথম দিনের স্কুল। ভয়ে ভয়ে বেঞ্চিতে বসা। অচেনা সবাই আশেপাশে। তারপর দিদিমণি এলে, প্রেয়ার শুরু করে স্কুল। মোটামুটি আমাদের সবার স্কুলজীবনের শুরু খানিকটা এভাবেই।  কাট টু ২০২০। “বাবু, আজ তো প্রথম স্কুল, ওঠো ওঠো, জামা পরে নাও, আমি ল্যাপটপ টা চালিয়ে দিচ্ছি। লক্ষ্মী হয়ে বোসো।”এর উত্তরে…

দুটি কবিতা – রূপক বর্ধন রায়

ধর্ষক যতবার যুদ্ধ বুকে, প্রেমকে খোঁজোনি,হেসেছে ইতিহাস, তোমার পৌরুষ মানেনি।মৃত্যুর দোহাই দাও, ধর্ম-জাতেস্বভাবে ঘৃণাই খাও, অভাব ভাতের।তুমি তো রক্ত ঘাটো ভাবাদর্শ বুঝে,যে শেয়াল কাটে দেহ, সেও খাদ্য খোঁজে।ভেবেছ, পুরুষ তাই দেশ ধর্ম আগেমানুষী অশুচী, তাই ঘৃণা তার ভাগে।যাকে কাটো, ভগ্নপ্রায় নারী বা পুরুষ,শরীরে আলাদা শুধু, মননে মানুষ;যে তুমি নারী দেহে শত ক্ষত আঁকতে পারো,আছে দ্বেষ, ধর্ম দেশ নেই জেনো তোমারো।যে পুরুষ পিতৃতন্ত্রে নীরব দর্শকমুখোশে মানুষ সে, মননে ধর্ষক। শেষ মহীরূহ অন্তিম গাছটা;  অনন্ত মরুদ্যান রূখে দাঁড়িয়ে আছে ;বুড়িয়েছে কবিতার শহর, প্রাচীন অরণ্য ফুরিয়েছে।কবিতার আকাশেও মেঘ নেই, চড়ে শুধু ধোয়া;শেষ কবিতারও তাই শেষ গাছে এই চিঠি দেওয়া। হে মহীরূহ;তোমার  প্রশাখা জুড়ে যে প্রাণেরা বাসা বেধে ছিল,তোমার ছায়ায় শুয়ে যে কবিরা রাত্রি জেগেছে,তোমার শেকড় জুড়ে যে ধরণী প্রসবিনী হলতাদের দোহাই তুমি থামাও এ অন্তর্জলী,তাদের জন্য ফের কবিতাকে ভরো গাছে গাছে!এ পৃথিবী কবিতার, সবুজের, মানুষ তো অনুজীবী,অপত্য, অপক্ক মনে, বীজ বোনে শুধু  ক্ষমতার।তুমি তো আকাশমনা, বাৎসল্যে মেনে নাও সবই ,ওরা বোঝেনি শেষের কথা, বৃক্ষ-কবিতা সমতার।রুক্ষ কুঠারাঘাতে,  এক একটা যুদ্ধ মেয়াদে,কেড়েছে তোমার বন, পুড়িয়েছে নিজ নিজ গৃ্‌হ,মানুষ পূর্ণতা পাক; ভালবাসা, প্রেম, অনুভবে;শাসনে শুদ্ধ কর,  বেঁচে ওঠো শেষ মহীরুহ । 

How To Truly Attain Success? – Rajarshi Das

Most people in the world are career oriented. They hardly ever look back on what they did and what they did not throughout their life. Being career oriented is not the problem, the actual problem is the regret of never savouring happy moments which were there during the journey to the acme of one’s profession….

বাংলা সিনেমায় কমেডি – সৌরভ জানা

“সামালকে জাপানি স্যুটকেশ” টকটকে লাল রং তার। ফেলুদা’র সাথে প্রথম সাক্ষাতের দৃশ্যটা চোখ বুজে মনে করলেই পেট পেঁচিয়ে হাসি পায়না, এমন বাঙালি বিরল। কিংবা “মাসীমা মালপো খামু”- সাড়ে চুয়াত্তর, ভানুর যেচে আলাপ। কিংবা মলীনা দেবীর কত্তার পকেট থেকে পাওয়া প্রেমপত্র বা তুলসী চক্কত্তির গিন্নীর হঠাৎ মাখোমাখো ব্যবহারে অবাক হওয়া। বসন্ত বিলাপ সিনেমায় চিন্ময়ের কাকিমাকে দেখে…