Skip to content

হৈমন্তী আঁধার – অমিত গুহ

তোমার শরীর টুকু ভেসে গেছে
ভেসে গেছে পরতের মাটি, রঙ
নকল জরির অলঙ্কার লেগে আছে পাঁজর, জঙ্ঘায়
আজ তুমি ম্লান, অন্ধকারে স্থান নিয়েছো
পড়ে থাকা স্মৃতির জঞ্জালে
কপালে সিঁদুর তবু লেগে আছে পরিজন হীন

তোমায় আদর করেছি নিভৃতে, তাই হে ঈশ্বরী
শোন এমন ভাবে লজ্জা পেয়ো না
এমন ভাবে ঘৃণিত করোনা
নিজের নগ্ন বুক, মস্তক হীন গ্রীবা আর উন্মুক্ত যোনি উপত্যকা
এমন ভাবে প্রার্থনা করোনা বজ্রপাতের নিষ্ঠুর দহন
এমন ভাবে লজ্জা পেতে নেই

প্রতিদিন কতবার ভাসান হয়েছি আমি
ভেসে গেছে গায়ে গায়ে লেগে থাকা ঈমান আর প্রেম
ভেসে গেছে এ ছাদের সাথে ও ছাদের সখ্যতা
ভেসে গেছে ছায়াদান , পরিজন, হাতে বোনা বন্ধুরা
ভেসে গেছে রিফিউজিক্যাম্প, কদিনের জমে থাকা মৃত্যুগন্ধে
ভেসে গেছে অগণিত নগ্ন মিছিল বৈজয়ন্তী রক্তিম পতাকায়

তবুতো সমাহিত সন্ধ্যা আসেন, ম্লান পূর্বীর প্রদীপ আলোয়
বিসমিল্লাহ্-র পবিত্র সানাই ছেয়ে ফেলে অন্নপূর্ণার মন্দির প্রাঙ্গন

আর, আমি প্রেমে পড়ে যাই, আবার ৷

প্রচ্ছদ : রানা বন্দ্যোপাধ্যায়

Published inPoetry

Comments are closed.

%d bloggers like this: